ভোটের প্রার্থী আশিক নিজের শুভেচ্ছা পোস্টার সেটে চলেছে

0
81

স্টাফ রিপোর্টার

নিজের ওয়ার্ড বাসীদের ঈদ শুভেচ্ছা জানিয়ে কয়েশ পোষ্টার ছেপেছেন আশিক মোল্লা। ব্যাগে পোষ্টার হাতে আঠার (ডেকচি) পাত্র। উপজেলার সদরের গুরুত্বপূর্ন স্থানে পোষ্টার সেটে বেড়াচ্ছেন নিজে। সাথে আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হবেন বলে প্রচার করছেন। তার এই অভিলাশের ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পরেছে।

কুষ্টিয়ার খোকসায় আসন্ন ৬ষ্ঠ উপজেলা নির্বাচনে চার জন চেয়ারম্যান প্রার্থী, প্রায় এক ডজন পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদের তিনজন প্রার্থী প্রচার প্রচারণায় রয়েছেন। ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা জামায়াতে ইসলামীর আমীর আছেন, আছেন এবি পাটির এক জেলা নেতা। এদের সাথে যুক্ত হয়েছেন আশিক মোল্লা।

চেয়ারম্যান পদে বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বাবুল আখতার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি রাহিম উদ্দিন খান, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আল মাসুম মোর্শেদ শান্ত ও ওসমানপুর ইউনিয় পরিষদের চেয়ারম্যান ওহিদুল ইসলাম ডাবলু রয়েছেন। ইউপি চেয়ারম্যান ডাবলু’র আওয়ামী লীগের পদ-পদবী নেই। তবে আওয়ামী লীগ ঘরানার।

উপজেলা পরিষদের পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রচার প্রচারনা ও গনসংযোগে রয়েছেন বর্তমান পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সেলিম রেজা, শিমুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম শুটকা, ছাত্রলীগ নেতা সাইমন আহম্মেদ, রেজাউল ইসলাম মাষ্টার, মনিরুল ইসলাম, আফজাল হোসেন, মিজানুর রহমান মিজান মাস্টার রয়েছেন। এসব প্রার্থীরা আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। আওয়ামী লীগের উপদলীয় কন্দোলে জড়িয়ে পরা এসব নেতারা বিভিন্ন অংশের রাজনীতির সাথেও জড়িত।

ক্রিয়াবিদ আসাদুজ্জামান লিটন ভাইস চেয়ারম্যানদের প্রার্থী হিসেবে গনসংযোগ করে চলেছেন। ক্রিয়া ব্যক্তিত্বসহ সব শ্রেণির খেলোয়ারদের সাথে যোগাযোগও চালিয়ে যাচ্ছেন।

ভাইস চেয়ারম্যান পদের নির্বাচনের প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন উপজেলা জামায়াতে ইসলামীর আমীর নজরুল ইসলাম। সাংগঠনিক সিদ্ধান্তে তিনি প্রার্থী হচ্ছেন বলে দাবি করেন দলটির পৌর কমিটির উপদেষ্টা ও সাবেক পৌর কাউন্সিলর আব্দুর রাজ্জাক।

এবি পাটির জেলা আমীর আবু বক্কর সিদ্দিক জানান, উপজেলা নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে তাদের পাটি থেকে মওলানা আবু সাঈদকে প্রার্থী করা হয়েছে। তাদের প্রার্থী প্রচারণায় রয়েছেন।

এই পদের নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন উপজেলা যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক বাপ্পী বিশ্বাস রাজু। রবিবার নিজের ফেজবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে তিনি নির্বাচন থেকে সরে দাড়ানোর ঘোষনা দিয়েছেন।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদের প্রার্থী হচ্ছেন ৩ বার নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান ইসমরাত জাহান পুনম। নির্বাচন বর্জনকারী বিএনপি পরিবারের পুত্রবধূ তিনি। এ পদের অপর প্রার্থীরা হলেন সাবেক জেলা পরিষদের সদস্য রোজি সুলতানা ও ছন্দা খান।

ভাইস চেয়ারম্যান পদের কথিত প্রার্থী হওয়ার ঘোষনা দিয়েছেন আশিক মোল্লা। উপজেলার খোকসা ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের হাসিমপুর গ্রামের মিরাজ উদ্দিনের ছেলে। শারীরিক ভাবে অনেকটা স্তুলকায়ী। ভবঘুরে আশিক উপজেলা আওয়ামী লীগের একাশের নেতাদের ফাই-ফরমায়েস খাটেন। টেনে টুনে পঞ্চম শ্রেণিতে উঠেছিলেন। ইতোমধ্যে ভোটার হয়েছেন। বিয়েও করেছেন। এবার জনসেবার করার জন্য উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান পদে ভোটে দাঁড়াবেন।

এলাকার মাদ্রাসা স্কুল কবর স্থান মসজিদসহ নানা উন্নয়নের ইশতেহার সামনে নিয়ে ভোটে দাঁড়াবেন বলে মনস্থির করেছেন আশিক। জামানতের ৭৫ হাজার টাকাসহ নির্বাচনের সব ব্যয় করবেন তার বাবা মিরাজ উদ্দিন। নিজের ওয়ার্ডের লোকদের ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে পোষ্টার ছাপানোর টাকাও তার বাবা দিয়েছেন।

সোমবার দুপুরে উপজেলা সদরের গুরুত্ব পূর্নস্থানে পোষ্টা সাটার সময় আশিক মোল্লার সাথে দেখা করা হয়। অপসেট প্রেস থেকে ছাপা পোষ্টারের ব্যাগ ও আঠার পাত্র নিয়ে নিজে পোষ্টার সেটে বেড়াচ্ছিলেন। পরনের লুঙ্গিটি শতেক ছেড়া। নিজের মাথার চুল থেকে সবই তার এলামেলো।

আশিক মোল্লার শুভেচ্ছা পোস্টারের উপরের জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা, আওয়ামী লীগের যুগ্ন সম্পাদক মাহাবুব উল আলম হানিফসহ জেলা-উপজেলা পর্যায়ের প্রধান নেতাদের ছবি ব্যবহার করা হয়েছে।

স্থানীয় বাজারের একটি চায়ের দোকানে বসে আশিক মোল্লা বলেন, অনেক দিন ধরে সে ও তার বাবা আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাখে জড়িত। দলীয় নেতাদের সাথে কথা না বলে সে ভোটে দাড়ানোর প্রচার করছেন। প্রথম বারেই সে নির্বাচিত হবেন বলেও আশা প্রকাশ করেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌরসভার মেয়র তারিকুল ইসলাম বলেন, সবে তফশিল ঘোষনা হয়েছে। প্রার্থীতা চুড়ান্ত হয়ার পর দলীয় ভাবে নির্দেশনা আসবে। সেখানে প্রার্থীদের পোষ্টারে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুসহ দলীয় প্রধান ও নেতাদের ছবি ব্যবহারের বিষয়ে চুড়ান্ত করা হতে পারে। এখন যে কেউই পোষ্টারে ছবি ব্যবহার করছে।

তিনি আরও জানান, সম্ভব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী ও ওসমানপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ওয়াহিদুল ইসলাম ডাবলু আওয়ামী লীগের ইউনিয়ন বা থানা পর্যায়ের সাধারণ সদস্য পদও নেই।