সুপার ফোরের পথে বাংলাদেশ

0
104
ছবি সংগ্রহ

দ্রোহ স্পোর্টস ডেস্ক

এশিয়া কাপ শুরুর পর দুর্দান্তভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ। ব্যাক ফুট থেকে আফগানিস্তানের বিপে দৃঢ়তা দেখিয়ে রেকর্ড রান তুলেছে। বল হাতে দাপট দেখিয়ে তুলে নিয়েছে ৮৯ রানের বড় জয়। এশিয়া কাপের সুপার ফোরের পথে অনেকটা এগিয়ে গেছে।

লাহোরে টস জিতে ব্যাট করতে নামে বাংলাদেশ। নাঈম শেখের সঙ্গে ইনিংস শুরু করেন মেকশিফট ওপেনার মেহেদী মিরাজ। তিনিই বুমেরাং হয়েছেন দলের জন্য। দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি করেছেন মিরাজ। তার সঙ্গে রেকর্ড ১৯৪ রানের জুটি দিয়ে সেঞ্চুরি তুলে নেন নাজমুল শান্ত। বাংলাদেশ ৫ উইকেটে তোলে ওয়ানডে ফরম্যাটে নিজেদের তৃতীয় সর্বোচ্চ ৩৩৪ রান।

জবাব দিতে নেমে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই উইকেট হারায় আফগানিস্তান। কিন্তু তিনে নামা রহমত শাহকে নিয়ে ওই ধাক্কা সামলে নেন ইব্রাহিম জাদরান। তারা ৭৮ রান যোগ করেন। রহমত ফিরে যান ৩৩ রান করে। এরপর অধিনায়ক হাসমতউল্লাহর সঙ্গে জুটি হয় ইব্রাহিমের। তারা যোগ করেন ৫২ রান।

ওপেনার ইব্রাহিম ফিরে যান ৭৫ রানের দারুণ ইনিংস খেলে। মুশফিক দুর্দানত এক ক্যাচ ধরেন। ওই ধাক্কা সামলাতে একপ্রান্ত দিয়ে লড়াই করে যান আফগান অধিনায়ক শাহেদি। তিনি ৫১ রান করে ষষ্ঠ ব্যাটার হিসেবে ফিরতেই ধসে যায় আফগানিস্তুান। ৪৪.৩ ওভারে ২৪৫ রানে অলআউট হয় তারা।

বাংলাদেশ দলের হয়ে ১১২ রানের ইনিংস খেলেন মেহেদী মিরাজ। ওয়ানডে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি করার পথে মিরাজ ১১৯ বল খেলে নয়টি চার ও তিনটি ছক্কার শট তোলেন। চারে নেমে নাজমুল শান্ত ১০৪ রানের ইনিংস খেলে রান আউট হন। তার দ্বিতীয় ওয়ানডে সেঞ্চুরির ইনিংস ১০৫ বলে নয়টি চার ও দুই ছক্কায় সাজানো ছিল। এছাড়া সাকিব ১৮ বলে ৩২ ও মুশফিক ১৫ বলে ২৫ রানের ইনিংস খেলেন।

বাংলাদেশ দলের হয়ে দুর্দান্ত বোলিং করেছেন পেসার তাসকিন আহমেদ ও শরিফুল ইসলাম। ডানহাতি তাসকিন ৮.৩ ওভারে ৪৪ রান দিয়ে নিয়েছেন ৪ উইকেট। শরিফুল ৯ ওভারে ৩৬ রান দিয়ে নিয়েছেন মূল্যবান ৩ উইকেট। এছাড়া হাসান মাহমুদ ও মিরাজ একটি করে উইকেট নিয়েছেন। বাংলাদেশ কিংবা শ্রীলঙ্কার এক দলকে হারিয়ে সুপার ফোরে যেতে হলে বিশাল বড় জয় পেতে হবে আফগানদের।