ঢাকা ফেরত মুক্তিযোদ্ধা ও স্কুল ছাত্রের করোনা সনাক্ত

0
17
map-kushtia-dro-19-p7-compressed
কুষ্টিয়া জেলার ম্যাপ।

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে মুক্তিযোদ্ধা ও দৌলতপুরে করোনা রোগীর সংস্পর্শে আসা এক স্কুল ছাত্রের শরীরে করোনা পজেটিভ ধরা পরেছে।

জানা গেছে, কুমারখালী উপজেলার চাপড়া ইউনিয়নের বিশ^াসপাড়া গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য লোকমান হোসেন (৬৬) স্ব-স্ত্রীক ১৪ মে ঢাকার ছেলে বাসা থেকে নিজ বাড়িতে ফেরেন।

স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মীরা ১৮ মে ঢাকা ফেরত স্বামী-স্ত্রী দুজনেরই নমুনা সংগ্রহ করেন। পরের দিন মঙ্গলবার বিকেলের রিপোর্টে স্ত্রীর নেগেটিভ আসলেও স্বামী বীর মুক্তিযোদ্ধা লোকমান হোসেনের রিপোর্ট আসে পজিটিভ।

অপর দিকে দৌলতপুর উপজেলার মরিচা ইউনিয়নের কোলদিয়ার গ্রামে ঢাকা ফেরৎ গার্মেন্টস কর্মী মামা রনি আহম্মেদের (২৫) সংস্পর্শে এসে তার আপন ভাগ্নে স্কুল ছাত্র শাওন (১৫) করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। গার্মেন্টেস কর্মী রনি আহম্মেদ গত ১৪ মে ঢাকা থেকে গ্রামের বাড়িতে আসেন। ১৬ মে তার করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পর দিন ১৭ মে তার রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

কুষ্টিয়ার সিভিল সার্জন ডাঃ এ এইচ এম আনোয়ারুল ইসলাম মুক্তিযোদ্ধা লোকমান হোসেন ও স্কুল ছাত্র শাওনের করোনা সনাক্তের তথ্য নিশ্চিত করেন। এছাড়াও দৌলতপুর উপজেলার ফিলিপনগর উপজেলার ঢাকা ফেরত অপর গার্মেন্টস কর্মী তাজু মোল্লার পুনরায় পরীক্ষায়ও করোনা পজিটিভ এসেছে।

সিভিল সার্জন জানান, গত ২৪ ঘন্টায় কুষ্টিয়া পিসিআর ল্যাবে জেলার ৭০ জন ব্যক্তির করোনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে নতুন দুজন এবং পূর্বের একজনের করোনা পজিটিভ এসেছে। আক্রান্ত দুজনই বর্তমানে নিজ বাড়িতে অবস্থান করছেন।

দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আরিফুর রহমান জানান, করোনা সনাক্ত হওয়ার পর মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আক্রান্ত ওই স্কুল ছাত্রের বাড়ি এবং আশে পাশের এলাকা লকডাউন করা হয়েছে।

কুমারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আকুল উদ্দিন জানান, রাতেই ওই মুক্তিযোদ্ধার বাড়িসহ আশে পাশের এলাকা লকডাউন করা হবে।

এ নিয়ে কুষ্টিয়া জেলায় অদ্যাবধি ৩০ জন কোভিড রোগী সনাক্ত হল। এর মধ্যে সর্বাধিক দৌলতপুর উপজেলায় ১২ জন। এ উপজেলায় ঢাকা ফেরৎ দম্পতির সংখ্যা ৩ জোড়া। এছাড়াও ভেড়ামারায় ২, মিরপুর ৬, কুষ্টিয়া সদর ৩, কুমারখালী ৬ এবং খোকসা উপজেলায় ১ জন আক্রান্ত রোগী রয়েছেন। আক্রান্তের মধ্যে ১৮ জন ইতোমধ্যেই সম্পূর্ণ সুস্থ হয়েছেন বলে স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।