খোকসায় ছেলের হামলায় বাবা আহত

0
418
পুত্র ও পুত্র বধূর হামলায় আহত বৃদ্ধ তক্কেল আলী ও তার স্ত্রী রেনুকা।
পুত্র ও পুত্র বধূর হামলায় আহত বৃদ্ধ তক্কেল আলী ও তার স্ত্রী রেনুকা।

স্টাফ রিপোর্টার

পারিবারিক বিরোধের জের ধরে পুত্র ও পুত্র বধূর হামলায় আহত বৃদ্ধ তক্কেল আলীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শুক্রবার সকালে খোকসা উপজেলার ওসমানপুর ইউনিয়নে খানপুর গ্রামে বয়বৃদ্ধ তক্কেল আলী ও তার স্ত্রী রেনুকার উপর এ হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের এক ছেলে ও ছেলের স্ত্রী উপজেলার ওসমানপুর ইউনিয়নে খানপুর গ্রামে বয়বৃদ্ধ তক্কেল আলী ও তার স্ত্রী রেনুকার উপর এ হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের এক ছেলে ও ছেলের স্ত্রী। তক্কেল আলী রাজমিস্ত্রীর যোগানের কাজ করতেন। কয়েক বছর আগে একটি হাত ভেঙ্গে যার পর তাতে আর কেউ কাজে ডাকে না।

জানা গেছে, প্রতিদিনের মত শুক্রবার সকালেও তক্কেল আলীর স্ত্রী রেনুকার রান্না করা খাবার পুত্রবধূর মুরগিতে নষ্ট করে দেয়। এ ঘটনায় বৃদ্ধা তার পুত্রবধূ সুমিকে জানায়। বিষয়টি নিয়ে শ্বাশুরী ও পুত্র বধূর সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এর জের ধরে ছেলে টিটুল ও তার স্ত্রী সুমি বৃদ্ধ দম্পতির উপর হামলা চালায়। হামলা কারীদের ইটের আঘাতে আহত বৃদ্ধকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে।

আহত বৃদ্ধের স্ত্রী রেনুকা অভিযোগ করেন, তার নিজের নামে কেনা তিন শতক জমির উপর ছেলে টিটুল পাকা ঘর করে বসবাস করছে। অথচ বৃদ্ধ দম্পতির খাবার তো দেয়ই না। খোজও নেয় না। কিন্তু কারণে অকারনে তাদের উপর ছেলে ও ছেলের স্ত্রী শারীরিক নির্যাতন চালায়। শুক্রবার সকালে রান্না করা খাবার নষ্ট করে ফেলার বিষয়ে পুত্রবধূর কাছে তিনি অভিযোগ করায় তাদের উপার এ হামলা চালানো হয়। ইটের আঘাতে রক্তাক্ত আহত বৃদ্ধ স্বামীকে হাসপালে নেওয়ার চেষ্টা করায় তাদের বাড়িতে আটকে রাখা হয়। পরে প্রতিবেশীদের চাপের মুখে তাদের (বৃদ্ধ দম্পতি) কে ছেড়ে দেওয়া হয়। আহত স্বামীকে নিয়ে বৃদ্ধা প্রথমে থানায় গিয়েছিলেন। সেখান থেকে তাদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

আহত বৃদ্ধ তক্কেল আলী ও তার স্ত্রী রেনুকা।