ইতালিতে করোনায় ১১ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ মৃত্যু

0
19

দ্রোহ অনলাইন ডেস্ক

ইতালিতে করোনা ভাইরাসে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা কমলেছে। তবে বেড়ে গেছে মৃতের সংখ্যা, গত ১১ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ। দেশটির নাগরিক সুরা কর্তৃপরে তথ্য মতে শনিবার ২৪ ঘণ্টায় আগের দিনের একই সময়ের তুলনায় মারা গেছেন বেশি মানুষ, আক্রান্ত হয়েছেন কম। করোনা মহামারির বিস্তার রোধে ঘোষিত লকডাউন যখন শিথিল করার পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছে ইতালি, ঠিক তখনই আবার মৃত বেড়ে যাওয়ায় দুশ্চিন্তায় পড়েছে কর্তৃপ। সোমবার লকডাউন শিথিলের চিন্তা করেছিল দেশটি। খবর ব্লুমবার্গ নিউজের।

ইতালির নাগরিক সুরা কর্তৃপ রোববার এক ব্রিফিংয়ে জানায়, শনিবার ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৪৭৪ জনের । অথচ শুক্রবার ২৪ ঘণ্টায় এ ভাইরাসে ২৬৯ জন প্রাণহানি হয়েছে। শনিবার আক্রান্ত হয়েছে ১ হাজার ৯০০ জন। তবে আগের দিন আক্রান্ত হন ১ হাজার ৯৬৫ জন। শনিবারের মৃত্যুর সংখ্যা গত ২১ এপ্রিলের পর থেকে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু।

কর্তৃপ জানায়, শনিবারের মৃত্যু নিয়ে এ পর্যন্ত ইতালিতে করোনায় মোট প্রাণহানি ঘটেছে ২৮ হাজার ৭১০ জনের। আর গত ২১ ফেব্রুয়ারিতে দেশটিতে করোনা প্রাদুর্ভাব শুরুর পর এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৯ হাজার ৩২৮ জন।

এদিকে মৃত্যু বাড়ার সঙ্গে ইতালিতে ক্রমেই বাড়ছে সুস্থতার সংখ্যা। শনিবার একদিনেই সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৬৬৫ জন করোনা রোগী। এ নিয়ে দেশটিতে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৭৯ হাজার ৯১৪ জন রোগী।

আশা করা হচ্ছে, সুস্থতার সংখ্যা বাড়তে থাকায় খুব শিগগিরই স্বাভাবিক ছন্দে ফিরবে ইতালি। সে ল্েযই আগামীকাল সোমবার লকডাউন শিথিল করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। অর্থনৈতিক তি কমাতে এরই মধ্যে বিভিন্ন শহরে খুলতে শুরু করেছে দোকানপাট, রেস্টুরেন্ট, স্টেশনারি, বইয়ের দোকান ও বাচ্চাদের কাপড়ের দোকান। কম্পিউটার ও কাগজপত্র তৈরির কাজ শুরুর অনুমতি দেয়া হয়েছে। আগামী ১৮ মের পর বিভিন্ন অঞ্চলে সীমিত আকারে উৎপাদন শিল্প, নির্মাণ খাত ও পাইকারি দোকানগুলো চালু করে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

দেশটির প্রধানমন্ত্রী জোসেফ কোতে শুক্রবার ফেসবুক স্ট্যাটাসে ত্রাণ বিতরণে বিলম্বেও কারণে দেশবাসীর কাছে মা চেয়ে বলেছেন, আগামী সোমবার থেকে আমরা লকডাউন শিথিল করতে যাচ্ছি।