খোকসায় সরকারী জমি দখল করে আওয়ামী লীগের অফিস

0
170

স্টাফ রিপোর্টার

কুষ্টিয়ার খোকসার মোড়াগাছা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে একটি আঞ্চলিক মহাসড়কের সরকারী জমিতে ইউপি চেয়াম্যানের নেতৃত্বে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের অফিসের নামে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নির্মানের অভিযোগ উঠেছে। তবে এই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি অফিস করার বিষয়ে জানেন না।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, খোকসা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মালেকের নেতৃত্বে শুক্রবার সন্ধ্যায় একদল লোক স্থানীয় বাজারের পূর্ব পাশে মোড়াগাছা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের গেটের সাথে কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী আঞ্চলিক মহাসড়কের জমিতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও ইউনিয়ন পরিষদের একটি সাইন বোর্ড টাঙ্গিয়ে দেন। এর পর সড়কের ওই জমি থেকে বাবর আলী নামের এক বালু ব্যবসায়ীর টিনের ছাপড়াঘর সরিয়ে ফেলেন। এখন সড়ক ও স্কুলের ৫০ ফুট লম্বা জমি দখল করে পাকা ঘর নির্মান শুরু করেছেন ওই ইউপি চেয়ারম্যান। রবিবারে সড়ক জনপদ বিভাগের জনৈক কর্মচারী ঘটনা স্থলে এসে নির্মান কাজ বন্ধ করে দেয়। সড়ক জনপদ বিভাগের ওই কর্মচারী যাওয়ার পর জোরে-সরে আবার ঘর নির্মান কাজ শুরু করা হয়।

বালু ব্যবসায়ী বাবর আলী অভিযোগ করে বলেন, তার ভাই প্রবাসী রুহুল প্রায় ১০ বছর আগে সড়কের পাশে একটি টিনের ছাপড়া ঘর তুলেছিল। সেখানে বালু রেখে তিনি ব্যবসা করতেন। চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক লোকজন নিয়ে এসে তাদের ঘর ভেঙ্গে ফেলে দিয়ে দলীয় অফিসের সাইনবোর্ড দিয়ে দখল নিয়েছে। তার প্রায় দুই লাখ টাকার বালি নষ্ট হয়েছে বলেও তিনি দাবি করেন।

খোকসা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আব্দুল বারেক মোল্লা জানান, তার ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের অফিস হচ্ছে এই প্রথম শুনলেন। তিনি এ বিষয়ে কিছুই জানেন না।

মোড়াগাছা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বলাই চন্দ্র বিশ্বাস জানান, স্কুলের বাউন্ডারীর বাইরে স্কুলের খুব একটা জমি নাই। এ ছাড়া রাজনৈতিক দলের অফিস হচ্ছে সেখানে কে বাধা দেবে।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের একাংশের নেতা মকুল বলেন, স্কুলের সামনে সরকারী জমিতে রাজনৈতিক দলের অফিস করা ঠিক না। কিন্তু কে বলবে ? ক্ষমতা থাকলে সবই হয়।

ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মালেকের সাথে কথা বলা হলে তিনি স্বীকার করেন স্কুলের সামনে সরকারী জমিতে অফিস করা ঠিক হচ্ছে না। কিন্তু দলীয় নেতাকর্মী বসার জায়গা নেই। এ ছাড়া ইউনিয়ন পরিষদের ভবন না থাকায় ওই ঘর করা হচ্ছে। জমি অন্য জনের দখলে ছিল। তাকে উচ্ছেদ করা হয়েছে বলেও তিনি দাবি করেন।

আরো পড়ুন – পদ্মা সেতুর নাট-বল্টু খোলা যুবক ৭ দিনের রিমান্ডে

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র তারিকুল ইসলাম তারিখ বলেন, তিনি যখন ওই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ছিলেন তখন মোড়াগাছা বাজারের পাশে পানি উন্নয়ন বোর্ডের জমিতে অফিসের আংশিক গাথা হয়েছিল। তবে তিনি খোজ নিয়ে দেখবেন বলে জানান।

কুষ্টিয়ার সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সাকিরুল ইসলাম বলেন, এমনতো হয়ার কথা না। তিনি খোজ নিয়ে জানাবেন।