হরিণাকুন্ডুতে ক্লিনিকে নবজাতকের মৃত্যু

0
70
প্রতিকী ছবি

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডুতে ক্লিনিকের কর্তৃপক্ষের অবহেলায় এক নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, ৩০ জুন উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের রুপালী খাতুন (২৫) নামে সন্তান সম্ভাবা এক নারী ভাই ভাই ক্লিনিকে ভর্তি হন। রাত নয়টার দিকে কালিগঞ্জ হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডাঃ আলমগীর হোসেন তাঁর সিজারিয়ান অপারেশন করেন। এ সময় ওই নারীর একটি পুত্র সন্তান জন্ম নেয়। অপারেশনের পর নবজাতক শিশু ও মা দু‘জনেই সুস্থ ছিল।

স্বজনদের অভিযোগ, রাতে নবজাতককে অক্সিজেন দেয় ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ পরে সেটি খুলে ফেলে মায়ের বুকের দুধ খাওয়াতে বলে। দুধ খাওয়ানোর পর নবজাতক ঘুমিয়ে পড়ে। ঘুমন্ত অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়।

নবজাতকের বাবা নিয়াজি অভিযোগ করেন, অপারেশনের পর সুস্থ সন্তান জন্ম নেয়। তখন সন্তান ও তাঁর মা দুজনেই সুস্থ ছিল। তাহলে কীভাবে ঘুমের মধ্যে আমার শিশু বাচ্চা মারা গেল। নিশ্চয় কিনিকের কারও না কারও অবহেলা ছিল।

ওই কিনিকের মালিক আসমত আলীর কাছে জানতে চাইলে শিশুটি মায়ের গর্ভে মারা গেছে বলে দাবি করেন।

আরো পড়ুন – খোকসার প্রতিবন্ধি শামীম হাত দিয়ে পাথর ভাঙ্গে

চিকিৎসক আলমগীর হোসেন বলেন, অপারেশন করার পর নবজাতক ও মা দু‘জনেই সুস্থ ছিল। শুনেছি ঘুমের মধ্যে শিশুটি মারা গেছে। কী সমস্যা হয়েছিল এটা তার জানা নাই বলে জানান।

ঝিনাইদহ সিভিল সার্জন শুভ্রা রাণী দেবনাথ বলেন, কোনোভাবেই নবজাতকের মৃত্যু কাম্য নয়। এ ঘটনায় তদন্ত করে অবহেলা পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধেই আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।