কুমারখালীতে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের ওপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

0
15

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান রওশন আলীকে (৪৫)কে হত্যা চেষ্টার ঘটনায় মামলা না নেওয়ায় অভিযোগ উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে। দোষীদের বিরুদ্ধে মামলা নিয়ে তাদের বিচারের আতায় আনতে মুক্তিযোদ্ধা ও এলাকাবাসী মানববন্ধন করেছে।

বুধবার সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্ত¡রে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে মুক্তিযোদ্ধা আজমত আলী বলেন, গত সোমবার (৩ জুলাই) সকাল ৯টার দিকে তার ছেলে রওশন আলী সাওতা গ্রামে মাঠ থেকে নিজ বাড়িতে ফিরছিলেন। জমি নিয়ে পূর্ব বিরোধের জের ধরে প্রতিবেশী সাবদুল ও তার লোকজন ধারালো অস্ত্র দিয়ে হামলা চালিয়ে রওশনকে আহত করে ফেলে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনার তিন দিন পেরিয়ে গেলেও কুমারখালী থানা পুলিশ মামলা নেয়নি। পুলিশ তাদেরকে জানিয়েছে সাবদুলের নাম বাদ দিলে মামলা নেওয়া হবে।

আরো পড়ুন – নতুন এমপিও পাচ্ছে ২৭১৬ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

মুক্তিযোদ্ধা আজমত আলী আরও বলেন, সঠিক বিচার পাওয়ার জন্য এ ব্যাপারে আমি অনেকের কাছে গিয়েছি। আমি গরীব মুক্তিযোদ্ধা হওয়ায় আমার পাশে কেউই দাঁড়ান নি। কোনো উপায় না পেয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সামনে মানববন্ধন করছি। মানববন্ধনে রওশনের স্বজন ও এলাকার নারী পুরুষ নেন।

হামলার শিকার রওশনের স্ত্রী ফেরদৌসী খাতুন বলেন, স্বামীকে নিয়ে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে রয়েছি। মামলা নিয়ে নাটক করছে পুলিশ। অভিযোগ দেয়ার তিন দিন অতিবাহিত হলেও মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়নি। প্রতিদিনই আমরা হয়রানির শিকার হচ্ছি থানায় গিয়ে। পুলিশ আসামিদের কাছে টাকা খেয়ে আমাদের সাথে অবিচার করছে। তাছাড়া আসামিরা প্রতিনিয়ত হত্যার হুমকি দিচ্ছে, দেখে নেয়ার হুমকি দিচ্ছে। আমরা জান-মাল নিয়ে ভয়ে আছি। আমরা আসামিদের বিচার চাই।

এ ব্যাপারে কুমারখালী উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মুকাদ্দেস হোসেন বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। পুলিশ কেনো মামলা নিল না অবশ্যই জবাব চাইবো। আমরা মুক্তিযোদ্ধা আজমত আলীর পাশে আছি।

কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, আমরা আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। ওই ঘটনায় ভুল বা মিথ্যা অভিযোগে কেউ হয়রানি হোক তা আমি চাই না। তাই অভিযোগটি তদন্ত করা হচ্ছে। মামলাও হবে।