খোকসায় বিদ্যুতের ফাঁদে বৃদ্ধা আহতের ঘটনায় হামলা পাল্টা-হামলা

0
30
ফাঁদের বিদ্যুতে আহত বৃদ্ধা জাবেদা খাতুন ।

পৃথক হামলায় দুই জোড়া দম্পতি আহত হয়েছেন

স্টাফ রিপোর্টার

কুষ্টিয়ার খোকসায় মুরগীর ফার্মে বিদ্যুতের ফাঁদে আটকে বৃদ্ধা আহত হওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে হামলা পাল্টা হামলায় দুই পক্ষের নারী ও পুরুষসহ ৬ জন আহত হয়েছেন। চকহরিপুরে পৃথক হামলায় দুই জোড়া দম্পতি আহত হয়েছেন।

এই হামলায় আহতদের মধ্যে ঢাকাস্থ খোকসা উপজেলা কল্যান সমিতির সহ সভাপতি রেজাউল করিম রয়েছেন।

সোমবার প্রত্যুশে উপজেলার আমবাড়িয়া ইউনিয়নের তাহেরপুর গ্রামে বৃদ্ধা জাবেদা খাতুন (৭০) প্রতিবেশী মুন্নাফ ওরফে মুনা শেখের মুরগীর ফার্মের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় বিদ্যুতের তারের ফাঁদে জড়িয়ে তড়িতাহত হন। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে বাকবিতন্ডা তা থেকে হামলা পাল্টা হামলার ঘটনা ঘটে।

তড়িতাহত বৃদ্ধার ভাতিজা রেজাউল করিম।

হামলায় আহত হন ঢাকাস্থ খোকসা উপজেলা সমিতির সহ সভাপতি রেজাউল করিম, সিরাজুল ইসলাম, মিলি খাতুন, ফার্ম মালিক মুন্নাফ শেখ ও তার ছেলে বেলায়েত শেখ।

বিদ্যুতে ফাঁদে আহত চিকিৎসাধীন বৃদ্ধা জাবেদা খাতুন জানান, সকালে তিনি প্রতিবেশীর বাড়িতে দাওয়াত দিতে যাওয়ার সময় আর এক প্রতিবেশীর ওই মুরগীর ফার্মের পাশে গুনো তার দিয়ে পাতা বিদ্যুতের ফাঁদে জড়িয়ে আহত হন। বাড়ির লোকেরা তাকে উদ্ধার করে সেবাযতœ করে। এ পর্যায়ে তার পরিবারের লোকেরা ফার্ম মালিকের কাছে অভিযোগ করতে গেলে তারা হামলা চালায়। এ হামলায় তার ভাতিজা ও অন্যরা আহত হয়। ঘরের সাথে মুরগীর ফার্ম করে তাতে বিদ্যুতের ফাঁদ পাতা ও হামলার ঘটনায় সুষ্ঠ বিচারের দাবি করেন বৃদ্ধা।

হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা মুন্নাফ শেখ ও তার ছেলে কথিত হামলা কারী মোস্তফা মুরগীর ফার্মে বিদ্যুতের ফাঁদ পাতা ও সেখান থেকে বৃদ্ধা তড়িতাহত হওয়ার কথা স্বীকার করেন। তবে ফার্মের মুগী রক্ষায় তারা ফাঁদ পাততে বাধ্য হয়েছেন। প্রতিপক্ষ পরিকল্পিত ভাবে হামলা করে বলেও দাবি করেন তারা।

ফার্মের মালিক মুন্নাফ শেখ ও তার আহত ছেলে

তড়িতাহত বৃদ্ধার পরিবারের পক্ষ থেকে রবিউল ইসলাম জানান, তার ঘরের সাথে মুরগীর ফার্ম করে সেখান বিদ্যুতের ফাঁদ পেতে মানুষ মারার চেষ্টা করছেন প্রতিবেশী মুন্নাফ। তারা ঘরের সাথে বিদ্যুতের ফাঁদ পাতা ও হামলার ঘটনায় মামলা করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ কামরু জ্জামান সোহেল জানায়, রেজাউল করিমের অবস্থা বেশ গুরুত্বর। তার মাথায় পৃথক দু’টি ক্ষত হয়েছে। সেখান থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে।

ঢাকাস্থ খোকসা উপজেলা কল্যান সমিতির সভাপতি আহসান নবাব হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানান। তিনি এ ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত বিচারের দাবি করেন।

আরো পড়ুন – খোকসায় করোনায় এক যুবকের মৃত্যু

সোমবার সকালে তুচ্ছ ঘটনা কেন্দ্র করে উপজেলার শোমসপুর ইউনিয়নের চকহরিপুর গ্রামে পৃথক হামলা পাল্টা-হামলার ঘটনায় নায়েব আলী (৫৫) ও তার স্ত্রী শাবানা এবং নিজাম উদ্দিন (৫০) ও তার স্ত্রী সাইমা গুরুত্বর আহত হয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন নিচ্ছেন।

খোকসা থানার ওসি সৈয়দ আশিকুর রহমান ও ওসি তদন্ত মামুনুর রশিদের সরকারী মোবাইল ফোনে কল করা হয়। কিন্তু দু’জন পুলিশ কর্মকর্তা ফোন রিসিভ করেন নি।