খোকসায় পৃথক দুর্ঘটনায় শিশুসহ নিহত দুই

0
32
প্রতিকী ছবি

স্টাফ রিপোর্টার

কুষ্টিয়ার খোকসায় পৃথক দুর্ঘটনায় রাইসা নামের এক শিশু ও আনন্দ কর্মকার নামের এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে।

সোমবার সকালে উপজেলার শোমসপুর ইউনিয়নের সন্তোষপুর গ্রামে বাড়ির পাশের দোকানে বিস্কুট কিনতে গিয়ে রাইসা (৪) নামের এক শিশু ব্যাটরী চালিত পাখি ভ্যানের চাপা পরে। তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশু রাইসা কে মৃত বলে ঘোষনা করেন। শিশুটি সন্তোষপুর গ্রামের ওসমান খান মেয়ে।

নিহত শিশুর দাদি আছিয়া খাতুন জানান, সকাল ন’টার দিকে মা’র কাছ থেকে টাকা নিয়ে বাড়ির পাশের দোকানে রাইসা বিস্কুট কিনতে যায়। আলম খাঁর দোকান থেকে বিস্কুট কিনে বাড়ি ফেরার পথে সে ভ্যানের চাপা পরে।

খোকসার নকশা পাড়ায় অরক্ষিত রেল ক্রসিং পারের সময় সাটেল ট্রেনের ধাক্কায় আহত বৃদ্ধা আনন্দ কর্মকার চিকিৎসাধিন অবস্থায় মারা গেছেন।

সোমবার দুপুরে পোড়াদহ-রাজবাড়ী ট্রেন রুটের খোকসা উপজেলার শিমুলিয়া ইউনিয়নের নকশা পাড়া বাজারের পাশের অরক্ষিত রেল গেট পার হওয়ার সময় সাটল ট্রেনের ধাক্কায় বৃদ্ধ আনন্দ কর্মকার (৬০) আহত হন। পরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধিন অবস্থায় তিনি মারা যান। নিহত বৃদ্ধ মানিকাট গ্রামের মৃত নিরাপদ কর্মকারের ছেলে।

স্থানীয়দের সূত্রে জানা গেছে, দুপুরে পোড়াদহ থেকে গোয়ালনন্দ ঘাটের উদ্যেশ্যে ছেড়ে আসা সাটল ট্রেনটি নকশা পাড়া বাজার রেলগেট অতিক্রম করার সময় আনন্দ কর্মকার ট্রেনের ধাক্কায় আহত হন। গ্রামবাসীরা আহত বৃদ্ধকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে নিয়ে আসন। সেখানে চিকিৎসার এক পর্যায়ে বৃদ্ধের মৃত্যু হয়।

আরো পড়ুন – কুমারখালীতে জাতীয় শোক দিবস পালিত

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত ডাক্তার আবির হোসেন সোহাগ জানান, আহত বৃদ্ধের মাথার খুলি ভেঙ্গে যাওয়া অতিরিক্ত রক্ত ক্ষরণে তার মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া পাখি ভ্যানের চাপায় আহত শিশু রাইসাকে হাসপাতালে আনার আগেই মারা যায়।

খোকসা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি সৈয়দ আশিকুর রহমান জানান, শিশু মৃত্যুর ঘটনায় অভিযোগ পেলে মামলা দায়ের করা হবে। ট্রেনের ধাক্কায় বৃদ্ধের মৃত‚্যর খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেন তিনি।