গড়াই সেতুর টোলপ্লাজার কর্মীদের সাথে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ

0
28
প্রতিকী ছবি

কুমারখালী প্রতিনিধি

কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী সড়কের গড়াই সেতুর টোলপ্লাজায় ছাত্রলীগ কর্মীদের সাথে ঘাট শ্রমিকদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় দুই পক্ষের ১৫ জন আহত হয়েছেন।

শুক্রবার সকাল ১১ টায় ঘটনা ঘটলেও সন্ধায় সোস্যাল মিডিয়ায় ঘটনার কয়েকটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে।

গড়াই সেতুর ইজারাদার পারভেজ আনোয়ার তনু বলেন, সিসিটিভি ফুটেজ দেখিছি। ঘাট কর্মীরা টোল চাওয়ায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা হামলা চালায়। হামলাকারীরা বেশ কিছু টাকা ছিনিয়ে নিয়ে গেছে। মামলার বিষয়টি এখনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

কুমারখালী উপজেলা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা বলছেন, প্রায় দেড়শো মোটরসাইকেল নিয়ে তারা জেলা ছাত্রলীগের শোকসভা যোগ দিতে যাচ্ছিলেন। টোল নিয়ে ঘাট শ্রমিকদের সাথে তাদের বাকবিতান্ডা হয়। এক পর্যায়ে ঘাট শ্রমিকরা তাদের উপর হামলা করে। এ হামলায় উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাশেদ আলম, কুমারখালী সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি নাজমুল হোসেন, পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন পলাশ, ছাত্রলীগের কর্মী সম্রাট, অমিত, চয়নসহ ১০ থেকে ১৫ জন আহত হয়েছে। তারে প্রায় তিনটি মোটর সাইকেল ভাংচুর করা হয়েছে।

কুমারখালী কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি নাজমুল হোসেন বলেন, জেলা ছাত্রলীগের শোকসভার কর্মসূচি ছিল। প্রায় ১৫০ টি মোটরসাইকেল নিয়ে আমরা সভায় যাচ্ছিলাম। সকাল ১১ টার দিকে টোলপ্লাজা এলাকায় পৌছালে তাদের কাছে টোল দাবি করা হয়। আমরা বললাম অনুষ্ঠানে দেরি হয়েছে, আমরা ছাত্রলীগ করি, আমাদের ছেড়ে দেন। ছাত্রলীগ পরিচয় শুনে আরো বেশি চড়াও হয়। দেশীয় অস্ত্র নিয়ে অতর্কিত হামলা চালায়।

আরো পড়ুন – আইনী প্রক্রিয়া খালেদা জিয়ার মুক্তির একমাত্র পথ – হানিফ

উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাশেদ আলমের মুঠোফোনে কল দেওয়া হয়। কিন্তু তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

কুমারখালী থানার ওসি কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, ছাত্রলীগের সাথে টোল কর্মীদের হাতাহাতি হয়েছে। কয়েকজন আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।