কুমারখালীর গ্রাম থেকে ৩৫টি দেশীয় অস্ত্র জব্দ

0
16
প্রতিকী ছবি

কুমারখালী প্রতিনিধি

কুমারখালী গ্রাম থেকে ৩৫টি দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার দিনগত রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার সদকী ইউনিয়নের চরপাড়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে পুলিশ এ সব দেশীয় অস্ত্র জব্দ করে। এ সময় দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত অস্ত্রের মধ্যে রয়েছে- ঢাল, ফলা, হাঁসুয়া, বল্লম।

অভিযানে আটক দুই জন হচ্ছেন কুমারখালী পৌরসভার এক নম্বর ওয়ার্ড বাটিকামারা এলাকার মনির হোসেনের ছেলে ফাহিম হোসেন (২৫) ও নন্দনালপুর ইউনিয়নের পুরাতন চুড়াইকোল এলাকার নজরুল ইসলামের ছেলে গালিব আশরাফ ওরফে সেতু (৩০)।

শনিবার কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুজ্জামান তালুকদার এসব তথ্য নিশ্চিত করে জানান, পুরুষ শূণ্য চরপাড়া গ্রামে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাতে অভিযান চালিয়ে অভিযানে ৩৫ টি দেশীয় অস্ত্রসহ দু জনকে আটক করা হয়েছে। জব্দকৃত অস্ত্রগুলো পূর্বের মামলার আলামত হিসেবে দেখানো হয়েছে। আটককৃতদের অজ্ঞাতনামা আসামী হিসেবে সনাক্তপূর্বক গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে সোপার্দ করা হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে ২০২০ সাল থেকে চরপাড়ায় আধিপত্য বিস্তার শুরু হয়। এক পরে নেতৃত্ব দেন দুলাল মিস্ত্রি। অপর পরে নেতৃত্ব দেন সাবেক ইউপি সদস্য আনসার আলী। ২০২০ সালের ৬ মে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে দুলাল মিস্ত্রির সমর্থক হুমায়ন মন্ডলকে (৪৪) কুপিয়ে হত্যা করে প্রতিপরা। এ ঘটনায় নিহতের ছোট ভাই সাইদুল ইসলাম বাদী হয়ে কুমারখালী থানায় ৩৬ জনের নামের একটি মামলা দায়ের করেছিলেন। মামলা নম্বর ৯।

আরো পড়ুন – কুমারখালীর তিন মাদ্রাসা শিক্ষক সহ ৮ জন র‌্যাবের হাতে আটক

১ আগষ্ট বদলা নিতে হুমায়ন হত্যা মামলার ৪ নং আসামী সেলিমকে কুপিয়ে হত্যা করে প্রতিপরা। এ হত্যাকান্ডের নিহতের ভাই শাহীন আলী থানায় ২৯ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। মামলা নম্বর ২।

জানা গেছে, হত্যা পাল্টা হত্যাকান্ডের ঘটনাকে কেন্দ্র করে উভয়প হামলা ও মামলার শিকার হয়েছেন। গ্রামের প্রায় প্রতিটি বাড়ি-ঘরেই ভাংচুর করা রয়েছে। বর্তমানে ওই গ্রামটি প্রায় পুরুষ শূন্য।