ব্রিটিশ রানির মৃত্যুতে বাংলাদেশে তিন দিনের শোক

4

দ্রোহ ডেস্ক

ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুতে বাংলাদেশে তিন দিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব এবিএম সরওয়ার-ই-আলম সরকার জানান, শুক্রবার থেকে তিন দিন রাষ্ট্রীয়ভাবে শোক পালন করছে বাংলাদেশ।

সত্তর বছর ধরে যুক্তরাজ্য শাসন করে আসা রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ বৃহস্পতিবার স্কটল্যান্ডের বালমোরাল প্রাসাদে মারা যান। তার বয়স হয়েছিল ৯৬ বছর বছর।

এর মধ্য দিয়ে ব্রিটেনে দ্বিতীয় রানী এলিজাবেথ অধ্যায়ের যবনিকাপাত ঘটল। তার উত্তরসূরি হিসেবে সিংহাসনে আসছেন বড় ছেলে যুবরাজ চার্লস।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ব্রিটিশ সাম্রাজ্য যখন য়িষ্ণু, সমাজ যখন বদলাচ্ছে, তখন রাজদÐ হাতে নিয়ে রাজপরিবারের আসন অটুট রেখেছিলেন দ্বিতীয় এলিজাবেথ, হয়েছিলেন সবার শ্রদ্ধার পাত্র।

রাজা ষষ্ঠ জর্জের মেয়ে হিসেবে ১৯৫৩ সালে ব্রিটিশ সিংহাসনে অভিষিক্ত হওয়া এলিজাবেথের শাসনকালই ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের দীর্ঘতম।

তার মৃত্যুতে শোক নেমে এসেছে গোটা যুক্তরাজ্যে। শোক জানিয়েছে কমনওয়েলভুক্ত দেশগুলোসহ অন্য দেশগুলোর রাষ্ট্রনেতারাও।

বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন।

একসময় ব্রিটিশ শাসনে থাকা বাংলাদেশের মাটিতে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের পা পড়েছে দুইবার।
প্রথমবার তিনি ঢাকায় আসেন ১৯৬১ সালের ফেব্রæয়ারিতে, ঢাকা তখন পূর্ব পাকিস্তানের প্রাদেশিক রাজধানী।

স্বাধীন বাংলাদেশে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ এসেছিলেন ১৯৮৩ সালের নভেম্বরে। সেবার তিনি ঢাকা থেকে ট্রেনে করে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার বৈরাগীরচালা গ্রাম দেখতে গিয়েছিলেন।

আরো পড়ুন – ঝিনাইদহে দুই সার ব্যবসায়ীকে জরিমানা

চার দিনের ওই সফরে সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধ এবং ঢাকায় সেইভ দ্য চিলড্রেনের কার্যালয়ও পরিদর্শন করেন রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ।
তার সিংহাসনে আরোহণের রজতজয়ন্তী উপলে ১৯৭৭ সালে কয়েকটি স্মারক ডাক টিকিটও প্রকাশ করেছিল বাংলাদেশ সরকার।

Print Friendly, PDF & Email