খোকসায় শারদীয় দুর্গোৎসবের প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত

0
20

কালীবাড়ি মন্দিরে জেলার সর্ববৃহৎ পূজার আয়োজন

স্টাফ রিপোর্টার

কুষ্টিয়ার খোকসায় শারদীয় দুর্গোৎসবের প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহত্তর জেলায় খোকসা কালীবাড়ি মন্দিরে অনুষ্ঠিত হবে সর্ববৃহৎ আয়োজনে দূর্গা পূজা।

বুধবার সকালে স্থানীয় ডিগ্রী কলেজ ক্যাম্পাসে উপজেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে আলোচনায় অংশ নেন ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যান সেলিম রেজা, পৌর মেয়র তারিকুল ইসলাম, থানা অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আশিকুর রহমান, খোকসা কালীবাড়ি পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি সুপ্রভাত মালাকার, সাবেক ডিপুটি কমান্ডার মনজেল আলী, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন কমিটির উপজেলা সভাপতি মাধব চন্দ্র বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক নারায়ণ মালাকার, খোকসা প্রেসকাবের সাধারণ সম্পাদক শেখ সাইদুল ইসলাম প্রবীন প্রমুখ।

সভায় সভাপতিত্ব করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রিপন বিশ্বাস।

এ বছর ৬৫টি পূজা মন্দিরে প্রতিমা তৈরীকরে সনাতন ধর্মালম্বীদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। শান্তিপূর্ণ ও সুন্দর পরিবেশে পূজা উদযাপনের জন্য প্রশাসনের প থেকে সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে সভায় জানানো হয়।

খোকসার ঐতিহ্যবাহী কালীমন্দিরে বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলার সব থেকে বড় পরিষরে দূর্গা পূজার আয়োজন চলছে। এখানে ১০ দিন ১০৩ টি প্রতিমার পূজা অর্চনা ও প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। স্থানীয় প্রতিমা শিল্পী সুকুমার বিশ্বাস প্রায় দুই মাস আগে পূজা ও প্রদর্শনীর জন্য প্রতিমা গুলো তৈরী শুরু করেন। এই মন্দিরের প্রতিমা তৈরীর অগ্রগতি চোখে পড়ার মত। অধিকাংশ প্রতিমা গুলোর মাটির কাজ শেষ হয়েছে। পূজা শুরু আগেই দূর দূরান্ত থেকে দর্শনার্থীরা প্রতিমা দেখতে ভিড় করছেন। অধিকাংশ মন্দিরে প্রতিমা তৈরীর কাজ ইতোমধ্যে ৭০শতাংশ সম্পন্ন হওয়ার পথে।

আরো পড়ুন – কুমারখালীতে মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়েছে

কমিটির সভাপতি প্রতাপ আদিত্ব জানান, ঐতিহ্য রক্ষায় এ বছরই ১০৩ খানা প্রতিমার পূজা এক সাথে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এ পূজা সম্পন্ন করতে বিগ বাজেটও করা হয়েছে। সবই সাধারণ মানুষের দানের টাকায় হবে। সব ঠিক ঠাক থাকলে ১০ দিন উন্মুক্ত প্রতিমা প্রদর্শনী কলবে। তিনি সব শ্রেণী পেশার মানুষের সহযোগীতা কামনা করেন। এ ছাড়া সবাইকে উৎসবে সামিল হওয়ার আহবান জানান।