শৈলকুপায় দু’পরে সংঘর্ষে ১৫ জন আহত

10

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার গ্রামের দোকানে মোবাইল রাখাকে কেন্দ্র করে দু’পরে সংঘর্ষে অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। কয়েকটি বাড়িঘর দোকান ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার সকালে উপজেলার চর গোলকনগর গ্রামে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আহতদের উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল ও শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

আহত হয়েছেন, একই গ্রামের কোরবান আলী (৫৯), উম্বাত আলী (৫৫), মামুন হোসেন (১৬),ইউনুস আলী (৩৫), শিপন হোসেন, গফুর মোল্লা (৪৫), আব্দুল মজিদ (৫০), রহিম মোল্লা (৫৫), নজির মোল্লা (৫২) ও রাশেদ আলী (২৭)সহ ১৫ জন।

স্থানীয়রা জানায়, গত রবিবার সন্ধ্যায় ওই গ্রামের ইউনুস মন্ডলের চায়ের দোকানে মোবাইল রেখে বাড়ি চলে যায় একই গ্রামের ইউসুফ মোল্লা। পরে মোবাইল নিতে এলে ইউনুস তা নিজের দাবী করে। এ নিয়ে ওইদিন ইউনুস ও ইউসুফের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এ ঘটনায় সোমবার দুপুরে উভয় পরে লোকজনের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন আহত হয়। এ ঘটনার জের ধরে মঙ্গলবার সকালে আবারো উভয় পরে লোকজন দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে উভয় পরে অন্তত ১৫ জন আহত হয়। ভাংচুর করা হয় দুই পক্ষের দোকান ও বসত বাড়ি। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। আবারো সংঘর্ষ এড়াতে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

আরো পড়ুন – দৌলতপুরের কৃষক হত্যা মামলায় ৫ সহোদরের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

শেলকুপা থানার ওসি আমিনুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। লিখিত আভিযোগ পেলে মামলা নেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email