খোকসায় শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীকে যৌন হরানারি অভিযোগ

87
প্রতিকী ছবি

অভিযোগকারীর পরিবার আত্মগোপনে

স্টাফ রিপোর্টার

কুষ্টিয়ার খোকসা জানিপুর সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে ১০ম শ্রেণির ছাত্রীকে যৌন হরানারি অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযুক্ত শিক্ষক রেজাউল করিমকে শুনানীর জন্যে ডাকা হয়েছে।

অভিযোগকারী শিক্ষার্থী খোকসা জানিপুর পাইলট বালিকা বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণিতে অধ্যায়নরত। গত ২০ সেপ্টেম্বর ওই শিক্ষার্থী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতিসহ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এ সময় শিক্ষার্থীর বাবা ও মা উপস্থিত ছিলেন। তার বাড়ি উপজেলা কমলাপুর গ্রামে।

সোমবার অভিযুক্ত শিক্ষককে শুনানীর জন্য তলব করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রিপন বিশ্বাস।

ছাত্রীর লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, খোকসা জানিপুর সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক রেজাউল করিমের কাছে বৈকালীন ব্যাচে প্রাইভেট পড়ত সে। এসএসসি পরীক্ষা চলার অজুহাতে ছাত্রীটিকে সকালের ব্যাচে আসার জন্য অনুরোধ করেন শিক্ষক রেজাউল করিম। সে মোতাবেক ১৭ সেপ্টেম্বর ছাত্রীটি সকালে পড়তে আসে। তার আসতে বিলম্ব হওয়ায় অতিরিক্ত কাজ চাপিয়ে দিয়ে ছাত্রীটিকে দেরি করান তিনি। এক পর্যায়ের সর শিক্ষার্থীরা চলে গেলে শিক্ষক ছাত্রীটির শরীরে হাত দেওয়া সহ নানা ভাবে যৌন হয়রানি করেন। এ ঘটনার দিন বাড়ি ফিরে শিক্ষার্থী তার পরিবারকে বিষয়টি অবহিত করে। পরে তারা প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন।

উপজেলা ও পুলিশ প্রশাসনের কাছে লিখিত অভিযোগ দেওয়ার পর থেকে ওই ছাত্রীর বাবা মা সাংবাদিক ও আত্মীয় সজনদের এড়িয়ে চলছে। একাধিক বার কল দিলেও ফোন রিসিভ করছে না। বাড়ি গিয়ে ডাকাডাকি করেও সারা মেলেনি। ছাত্রীর বাবা ও মা’র মুঠোফোন সব সময় চালু আছে।

অভিযোগকারী ছাত্রীর পরিবারের সাথে সম্পৃক্ত একটি সূত্র বলছে, কোন না কোন অদৃশ্য ভয়ের কারণে তারা আত্মগোপনে রয়েছেন। এটি সামাজিক ভীতিও হতে পারে।

অভিযুক্ত শিক্ষক রেজাউল করিমের মোবাইলে একাধিক বার কল করা হয়। কিন্তু তিনি ফোন রিসিভ করেনি।

থানা প্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ আশিকুর রহমান জানান, তিনি মৌখিক অভিযোগ পেয়েছেন। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেবেন।

আরো পড়ুন – কুমারখালীতে ছাত্রী উত্যক্তের ঘটনায় ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের হামলা

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার ও বিদ্যালয়টির পরিচালনা পরিষদের সভাপতি রিপন বিশ্বাস জানান, ছাত্রীর যৌন হয়রানির অভিযোগ পেয়েছেন। অভিযুক্ত শিক্ষক রেজাউল করিমকে সোমবার স্বশরীরে হাজির হয়ে জবাবদিতে বলা হয়েছে। দোষী সাবস্ত হলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email