খোকসায় গুলিবিদ্ধ নৌকার কর্মীকে ঢাকায় স্থানান্তর

0
31
গুলিবিদ্ধ আহত কায়েস ওরফে কায়েফ

স্টাফ রিপোর্টার

কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদের উপ – নির্বাচন কেন্দ্র করে হামলা পাল্টা হামলায় গুলিবিদ্ধ কায়েস ওরফে কায়েফ আলী (২০) কে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় স্থানান্তর করা হয়েছে।

শনিবার রাতে খোকসা ডাক বাংলার সামনের রাস্তায় প্রতিপক্ষের হামলায় ওই যুবক গুলিবিদ্ধ আহত হয়। আহত ব্যক্তি পৌর এলাকার পাতেলডাঙ্গী এলাকার রবিউল ইসলামের ছেলে। তিনি পেশায় দিনমজুর। তিনি বর্তমানে ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

নৌকার প্রার্থীর ভাতিজা শাফি জানায়, শনিবার ওসমানপুর ইউনিয়নে নৌকা প্রতিকের প্রার্থীর পথসভা ছিল। রাত ৯ টার দিকে অন্য কর্মীদের সাথে সেও বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় প্রতিপরে লোকজন আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে তাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে পালিয়ে যায়। এতে কায়েস ওরফে কায়েফের বুকের বাম পাশে গুলি লাগে। এসময় অন্যান্য কর্মীরা আহত অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে রাতেই কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল নিয়ে যায়। গুলিবিদ্ধ যুবকের অবস্থার অবনতি হলে রবিবার বিকালে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থান্তর করা হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, রাতে নৌকা ও ঘোড়া মার্কা প্রতীকের সমর্থক – কর্মীদের মধ্যে পাল্টা ধাওয়া ও ইট-পাটকেল নিেেপর ঘটনা ঘটে। এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার গাড়ি ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। এ সময় নৌকা প্রার্থীর এক জন গুলিবিদ্ধ হয়।

নৌকার প্রার্থী বাবুল আখতারের ভাতিজা শাফি বলেন, আমাদের লোকজন প্রচারণা শেষে বাড়িতে ফিরছিল। পথিমধ্যে স্বতন্ত্র প্রার্থীর লোকজন তাদের ওপর অতর্কিত আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এতে কায়েস ওরফে কায়েফ গুলিবিদ্ধ হয়। তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ঘোড়া মার্কা প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী মোতাহার হোসেন খোকন বলেন, রাতে আমরা বাড়ি চলে গিয়েছিলাম। কোনো সংঘর্ষ বা হামলা করিনি। নৌকার লোকজন নিজেদের গুলি করে আমাদের দোষ দিচ্ছেন।

আরো পড়ুন – খোকসায় ইউএনওর গাড়ি ভাংচুরের ঘটনায় মমলা হয়েছে

খোকসা থানার ওসি সৈয়দ আশিকুর রহমান বলেন, রাতে কোনো গুলাগুলির ঘটনা ঘটেনি। নিজেদের মধ্যে এক্সিডেন্টলি বা আত্মঘাতি হতে পারে। আহত ব্যক্তি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এখনো কোনো লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।