কুষ্টিয়ায় পৌর মেয়র ও পুলিশ কর্মকর্তা সহ ১৮ জনের করোনা শনাক্ত

0
77
mayor-sana-dro-8-p10
মেয়র ভেড়ামার । ফাইল ছবি।

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা পৌরসভার মেয়র, স্ত্রীসহ পুলিশের এক এসআই ও দুই নারী পুলিশসহ সর্বোচ্চ ১৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছেন।

সিভিল সার্জন ডাঃ এ এইচ এম আনোয়ারুল ইসলাম সোমবার রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাব থেকে একদিনে ৬৭ টি রিপোর্ট পাওয়া গেছে যার মধ্যে ১৮ জনের পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। এই নিয়ে বহিরাগত বাদে জেলায় ১৩৮ জন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হল।

আক্রান্তদের মধ্যে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শামীমুল ইসলাম ছানা (৫৫), খোকসা থানায় কর্মরত এসআই জহিরুল ইসলাম (৪৫) ও তার স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন (৩৭), খোকসা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এমটি ডেন্টাল পদে কর্মরত স্বপন কুমার (৫২), কুষ্টিয়া পুলিশ লাইনে কর্মরত পুলিশের এএসআই হুমায়ুন কবির ও দুই নারী পুলিশ সদস্য, দৌলতপুরের এসিল্যান্ড অফিসের নাজির আব্দুর রাজ্জাক (৪৫), কুষ্টিয়া শহরের কমলাপুর শ^শুড় বাড়িতে বেড়াতে আসা গাজীপুর ব্র্যাক ব্যাংকের কর্মকর্তা ফাইয়াজ আহমেদ (৪০), শহরের কালিশংকপুর এলাকার অবসর প্রাপ্ত সেনা সদস্য জালাল উদ্দিন (৫৭), কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে অপারেশনের জন্য ভর্তি থাকা সদর উপজেলার টাকিমারা গ্রামের মিনারা (৫০) এবং শহরের টালিপাড়া এলাকার ফ্লোরিডা (৬০) রয়েছেন। নতুন আক্রান্তদের ১৮ জনের মধ্যে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার ৯ জন, দৌলতপুর উপজেলায় ৩ জন, ভেড়ামারায় ২ জন, মিরপুর উপজেলায় ১ জন, এবং খোকসা উপজেলায় ৩ জন রোগী রয়েছেন। নতুন শনাক্তদের মধ্যে ১১ জন পুরুষ ও ৭ জন নারী। এই নিয়ে বহিরাগত বাদে কুষ্টিয়ায় জেলায় এখন পর্যন্ত ১৩৮ জন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হল।

শনাক্তদের মধ্যে দৌলতপুর ২৬, ভেড়ামারা ২৩, মিরপুর ১৩, কুষ্টিয়া সদর ৪৬, কুমারখালী ২০ ও খোকসা উপজেলায় ১০ জন রোগী রয়েছেন। এর মধ্যে পুরুষ রোগীর সংখ্যা ১০২ জন এবং নারী রোগীর সংখ্যা ৩৬ জন। এ পর্যন্ত সুুস্থ হয়ে ছাড় পেয়েছেন মোট ৩১ জন। বর্তমানে হোম আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১০৪ জন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৩ জন এবং আক্রান্ত ২ জনকে খুলনায় প্রেরণ করা হয়েছে।