কালুখালীতে সংবাদ সম্মেলনে অপহৃত সেই যুবক-যুবতী

0
17
Pangsh-Dro-11-p-13
সংবাদ সন্মেলনে পল্লব মন্ডল এবং রাফিয়া আক্তার জীম ও তাদের পরিবার

পাংশা প্রতিনিধি

২০ জুন তারিখে রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার মৃগী ইউনিয়নের শিকজান গ্রাম একটি ছেলে ও একটি মেয়ে অপহরণ হওয়ার ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছিল। অপহরণ হওয়া ছেলে উপজেলার মৃগী ইউনিয়নের শিকজান গ্রামের আলাউদ্দিনের ছেলে পল্লব মন্ডল এবং একই গ্রামের হুমায়ুন কবিরের মেয়ে রাফিয়া আক্তার জীম। তবে এমন ঘটনার পর থেকে এলাকায় প্রবল গুঞ্জন চলছিলো প্রেমের টানে ঘর ছেড়েছে কপোত- কোপতী।

তবে মেয়ের পিতার দাবী তার মেয়েকে অপহরণ করা হয়েছে। এবং অপহরণকারী হলেন কৃষকলীগ নেতা নূরে আলম সিদ্দিকী হক।

এ ঘটনায় মেয়ের পিতা হুমায়ুন কবির বাদী হয়ে ২৮ জুন তারিখে কালুখালী থানায় কৃষকলীগ নেতাকে মামলার ২নং আসামী করে ৬ জনের নাম উল্লেখ্য করে একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। ১ জুলাই একই দাবীতে কালুখালী উপজেলা প্রেসক্লাবে অভিযুক্ত নেতার বিচার দাবী করে সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি।

কিন্তু ঘটনাকে ভিন্নখ্যানে প্রবাহিত করতে নূরে আলম সিদ্দিকী হক অপহরণ হওয়া ছেলে মেয়েকে দিয়ে জোর করে একটি লিখিত বক্তব্য ভিডিও করেন। লিখিত বক্তব্য এবং ভিডিওতে রাজবাড়ী-২ আসনের এমপি ও তার ছেলেকে নিয়ে আপত্তিকর কথা বলা হয়, এবং তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করেন।

এদিকে শনিবার দুপুর ১ টায় কালুখালী উপজেলা প্রেসক্লাবে হাজির হোন অপহরণ হওয়া সেই ছেলে -মেয়ে ও তাদের পরিবার।

সংবাদ সম্মেলনে রাফিয়া ও পল্লব জানান, আমরা দুজন-দুজনকে ভালবাসি। এ ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য নূরে আলম সিদ্দিকী হক একটি সাদা মাইক্রোযোগে আমাদেরকে চোখ বেধে অপহরণ করে নিয়ে যায়। অহপরণ করে আমাদের দুজনকে নারায়নগঞ্জে নিয়ে একটি বাড়িতে আটকে রাখে এবং আমাদের দুজনকে বিয়ে দিয়ে দেয়।

রাফিয়া সংবাদ সম্মেলনে বলেন কোর্টে হাজিরার দিন হক আমাকে কোর্ট চত্ত্বরে নামিয়ে দেয় এবং আমাকে দিয়ে তার সাজানো মিথ্যা কথা বলতে বাধ্য করেন। আমি যদি তার সাজানো কথা না বলি তাহলে সে আমার স্বামী পল্লবকে মেরে ফেলবে বলে হুমকি প্রদান করেন। তাই আমি আমার স্বামীকে বাঁচাতে এসব কথা বলেছি।

আরও দেখুন-খোকসায় ২৫ বাচ্চাসহ মা গোখরা আটক

এ সময় রাফিয়ার পিতা হুমায়ন করিব ও পল্লবের পিতা আনোয়ার হোসেন বলেন, হক আমাদের ছেলে-মেয়েকে অপহরণ করে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিল করার চেষ্ঠা করেছিল, আমরা তার বিচার চাই।

সংবাদ সম্মেলনে মৃগী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ বদর উদ্দিন সরদার,মেয়ের পিতা,হুমায়ুন করিব,ছেলের পিতা আলাউদ্দিন,ছেলে পল্লব মন্ডল,মেয়ে রাফিয়া আক্তার জীম উপস্থিত ছিলেন।