দৌলতদিয়া ঘাটে দীর্ঘ যানজট

12
দীর্ঘ যানজট

দ্রোহ অনলাইন ডেস্ক

রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ও মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া নৌপথে পদ্মা ও যমুনা নদীর পানি বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। প্রচন্ড ¯্রােতের কারণে নদীতে ফেরি চলাচল করতে দ্বিগুণের বেশি সময় লাগছে। অপরদিকে ঈদের ছুটি শেষে ঢাকামুখী কর্মজীবি মানুষের উপচে পড়া ভিড় এবং প্রচুরসংখ্যক গাড়ি আটকা পড়েছে এ ঘাটে।

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাট কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক আবু আবদুল্লাহ বলেন, নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ¯্রােতের গতি বেড়ে গেছে। এ কারণেই ফেরি চলাচলে সময় দ্বিগুণ বা তার বেশি লাগছে। তা ছাড়া স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে এখন ঘাটে যাত্রীবাহী বাস বেশি আসছে। এ কারণে ঘাটের পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে তাঁরা হিমশিম খাচ্ছেন। এ নৌপথে বর্তমানে ইউটিলিটি (ছোট) ৭টি, রো রো (বড়) ৯টিসহ মোট ১৬টি ফেরি চলাচল করছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, নদী পারাপারের অপেক্ষায় যানবাহনের দীর্ঘ সারি। দৌলতদিয়া ঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে বাংলাদেশ হ্যাচারি অবধি সড়কে থেমে আছে তিন শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক ও যাত্রীবাহী বাস। এ ছাড়া পারাপারের অপেক্ষায় গোয়ালন্দ মোড়ে তিন শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক থামিয়ে রাখা হয়েছে। এ নৌপথে ছোট ৭টি এবং বড় ১৫টি লঞ্চ চলাচল করছে। তবে বৈরী আবহাওয়ার কারণে ঝুঁকি এড়াতে অনেকেই লঞ্চে না গিয়ে ফেরিতে উঠছেন।

গাড়ির চাপ বৃদ্ধি পাওয়ায় কর্তৃপক্ষ এখন যাত্রীবাহী বাস পারাপারে অগ্রাধিকার দিচ্ছে। তবু বাসগুলোর ফেরি পেতে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হচ্ছে। আর পণ্যবাহী ট্রাকগুলোর অবস্থা সবচেয়ে খারাপ। অনেকে ২৪ ঘণ্টার বেশি অপেক্ষা করলেও ফেরিতে উঠতে পারছে না।

কর্তৃপক্ষ বলছে, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে তারা যাত্রীদের দুর্ভোগ কমানোর দিকে নজর দিচ্ছে। এ কারণেই যাত্রীবাসী বাস ও ব্যক্তিগত গাড়ি পারাপারে অগ্রাধিকার দিচ্ছে। তবে বেশি সমস্যা বাধছে মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাট নদীভাঙনের কবলে পড়ার কারণে। এখন প্রায় সব যানবাহনই দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথ দিয়ে পারাপারের চেষ্টা করছে।

Print Friendly, PDF & Email