খোকসার সপ্তম শ্রেনীর ছাত্রী ভাগিয়ে নেওয়া মাদ্রাসা শিক্ষক আটক

0
86
KHOKSA-DRO-31-p-2 (2)
অভিযুক্ত মাদ্রাসা শিক্ষক সাইদুল ইসলাম

স্টাফ রিপোর্টার

সপ্তম শ্রেনীর ছাত্রীকে ভাগিয়ে নেওয়া সে মাদ্রাসা শিক্ষক আটক হয়েছে। খোকসা থানায় ওই মাদ্রাসা শিক্ষকের বিরুদ্ধে অপহরন ও নারী নির্যাতন আইনে মামলা করেছেন ছাত্রীর বাবা।

খোকসার সাতপাখিয়া এলাকা থেকে ১২ আগস্ট সপ্তম শ্রেনীর ছাত্রীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ভাগিয়ে নিয়ে যায় মাদ্রাসা শিক্ষক ক্বারি সাইদুল ইসলাম (৩৬)। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর চাচা খোকসা থানায় অভিযোগ করেন। প্রায় ১৮ দিন পর খোকসা থানা পুলিশ কুমারখালী থানার বাকচি সাতপাখিয়া গ্রামের অভিযুক্ত শিক্ষকের নিজ বাড়ি থেকে অপহৃত ছাত্রীকে উদ্ধার করে। অভিযুক্ত শিক্ষক একই এলাকার মৃত সৈয়দ আলীর ছেলে। এ ব্যাপরে ছাত্রীর বাবা মাদ্রাসা শিক্ষকের বিরুদ্ধে অপহরন ও নারী নির্যাতন আইনে মামলা করেছেন। উদ্ধার হওয়া ছাত্রীকে শারীরিক পরীক্ষার জন্য সোমবার সকালে কুষ্টিয়া সরকারী হাসপাতালে নেওয়া হবে।

আরও দেখুন-খোকসায় নজরুল স্মরণ উৎসব পালিত

আরও পড়ুন-খোকসায় আট জুয়াড়ী আটক

আরও পড়ুন-খোকসায় নজরুল স্মরণ উৎসব পালিত

পরিবার সূত্র জানায়, মাদ্রাসা শিক্ষক ক্বারি সাইদুল ইসলাম দীর্ঘ দুই বছর ওই ছাত্রীকে আরবি শিক্ষা দিয়ে আসছিলেন। অবশেষে কারি শিক্ষক দুই সন্তানের জনক সাইদুল ইসলাম ১২ আগস্ট দুপুরে ওই ছাত্রী ভাগিয়ে নিয়ে যায়।