আবরারের বাবার অসুস্থতায় সাক্ষ্যগ্রহণ পেছাল

11
DROHO-20-P-6
নিহত বুয়েট ছাত্র আরবার

দ্রোহ ডেস্ক

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা মামলার সাক্ষ্য গ্রহণ বাদীর অসুস্থতার কারণে পিছিয়েছে।

রবিবার ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামানের আদালতে এ মামলার সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু মামলার বাদী আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ জন্ডিসে আক্রান্ত হওয়ায় রাষ্ট্রপক্ষ এদিন সময়ের আবেদন করে। আদালত সময়ের আবেদন মঞ্জুর করে এ মামলার সাক্ষ্য গ্রহণ শুরুর জন্য ৫ অক্টোবর নতুন তারিখ ঠিক করে দেন।

অসুস্থ হলেও এদিন আদালতে হাজির ছিলেন আবরারের বাবা। রেওয়াজ অনুযায়ী সাক্ষ্য গ্রহণের প্রথম দিন বাদী হিসেবে তারই জবানবন্দি দেওয়ার কথা ছিল।

তিনি বলেন, “জবানবন্দি হয়ত দিতে পারতাম। কিন্তু কষ্ট হত। কিন্তু জেরার ধকল এই শরীরে সহ্য করতে পারতাম না। আমি শারীরিকভাবে সক্ষম না হওয়ায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীদের বলেছি, যে আমি সাক্ষ্য দিতে এ মুহূর্তে প্রস্তুত নই।”

বুয়েটের শেরে বাংলা হলের আবাসিক ছাত্র ও তড়িৎ কৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবরারকে গত ৬ অক্টোবর রাতে ছাত্রলীগের এক নেতার কক্ষে নিয়ে নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করা হয়। পরদিন ৭ অক্টোবর তার বাবা ১৯ শিক্ষার্থীকে আসামি করে চকবাজার থানায় মামলা করেন। পাঁচ সপ্তাহ তদন্ত করে তদন্ত কর্মকর্তা গোয়েন্দা পরিদর্শক ওয়াহিদুজ্জামান গত ১৩ নভেম্বর ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে যে অভিযোগপত্র জমা দেন, সেখানে আসামি করা হয় মোট ২৫ জনকে।

ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান গত ১৫ সেপ্টেম্বর ২৫ আসামির সবার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরুর জন্য ২০ সেপ্টেম্বর দিন রেখেছিলেন।

মামলার আসামিরাও সবাই বুয়েটের বিভিন্ন বিভাগের বিভিন্ন বর্ষের শিক্ষার্থী। তাদের মধ্যে ২২ জন গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে আছেন। বাকি তিনজনকে পলাতক দেখিয়েই এ মামলার বিচার চলবে।

Print Friendly, PDF & Email