করোনা দুর্যোগে পশুর প্রতি ভালোবাসা

0
41

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

করোনা মহামারীতে স্থবির হয়ে পড়েছে জনজীবন। বৈশি^ক এই দুর্যোগ মোকাবেলায় দুস্থ-অসহায় মানুষকে সহযোগিতার পাশাপাশি পশুদের প্রতি ভালোবাসা প্রদর্শনের এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন পশু প্রেমি এক দম্পতি।

রাস্তায় রাস্তায় অলিতে-গলিতে ঘুরে ঘুরে এই দম্পতি রান্না করা খাবার তুলে দিচ্ছেন সারাদিন অভুক্ত থাকা কুকুরের মুখে। ঝড়-বৃষ্টি উপেক্ষা করে পশুদের প্রতি ভালোবাসা প্রদর্শনের এমন বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপনের ছবি এবং ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তা ভাইরাল হলে প্রশংসার জোয়ারে ভাসছেন ওই দম্পতি।

আলোচিত এই দম্পতি কুষ্টিয়ার পোল্টি ও ফিস ফিড উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান কেএনবি এগ্রো ইন্ডাষ্ট্রিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রোটারি ক্লাব অব কুষ্টিয়া ওয়েস্ট’র সাবে প্রেসিডেন্ট রোটারিয়ান কামরুজ্জামান নাসির ও তার স্ত্রী প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান রোটারিয়ান চামেলি জামান।

সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ওই ছবি ও ভিডিও তে দেখা যায়, নিজে গাড়ি চালিয়ে প্রতি রাতে কুষ্টিয়া শহর এবং শহরতলীর প্রতিটি রাস্তা এবং অলি-গলিতে ঘুরে ঘুরে কুকুরের মুখে রান্না করা খাবার তুলে দিয়ে গভীর রাতে বাসায় ফিরছেন জামান দম্পতি।

গত ২৪ মার্চ থেকে সারাদেশে লক ডাউন চলছে। ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, দোকান-পাট, হোটেল-রেস্তোরা সব বন্ধ। সব কিছু বন্ধ থাকায় সবাইকেই খাবারের জোগান নিয়ে চিন্তা করতে হচ্ছে। এ অবস্থায় মানুষের পাশাপাশি রাস্তার ভাসমান কুকুরগুলোরও চরম খাদ্যাভাব দেখা দিয়েছে। ক্ষুধার জ¦ালায় এই পশু গুলো রাস্তায় নিস্তেজ হয়ে শুয়ে পড়ে রয়েছে। শহর এবং শহরতলীর এসব কুকুরদের খাবারের বেশিরভাগ সংস্থান হয়ে থাকে হোটেল-রেস্তোরা থেকে। হোটেল-রেস্তোরার উচ্ছিষ্ট ও বাসা বাড়ির ফেলে দেওয়া খাবার খেয়েই বেঁচে থাকে এসব পশু গুলো। করোনার কারণে সরকার সাধারণ ছুটি ঘোষণা করার পর গত মার্চ মাস থেকে প্রতিদিন এভাবে প্রায় শতাধিক কুকুরের মুখে খাবার তুলে দিচ্ছেন পশু প্রেমি এই দম্পতি।

শুধু পশু নয়; এই দুর্দিনে তাঁরা দুস্থ ও অসহায় মানুষের পাশেও সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। নিজ ইউনিয়ন কুষ্টিয়া সদর উপজেলার খোর্দ্দ আইলচারা এবং বটতৈল ইউনিয়নের এক হাজার দুস্থ মানুষের হাতে তুলে দিয়েছেন ১৫ দিনের খাবার। প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলেও অর্থ সহযোগিতা করেছেন। স্থানীয় জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, পৌর মেয়রসহ ত্রাণ নিয়ে যারা কাজ করছেন সেসব প্রতিষ্ঠান এবং বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনকেও আর্থিক সহযোগিতা দিয়েছেন এই দম্পতি।

কামরুজ্জামান নাসির বলেন, প্রাণী জগতে কুকুর প্রভুভক্ত ও মানুষের উপকারী বন্ধু। মনিবের জন্য জীবন দেওয়ার মত অসংখ্য নজির এদের রয়েছে। তাদের খাবারের জোগান হয় ডাস্টবিন ও নালা-নর্দমায় ফেলে দেওয়া গৃহস্থালি ও হোটেল-রেঁস্তোরার খাবারের উচ্ছিষ্ট অংশে।