বাঙালি কবে আপনারা মানুষ হবেন?

0
154
robul-dro-16-14-compressed
অধ্যাপক রবিউল ইসলাম

অধ্যাপক রবিউল ইসলাম

যুক্তিবিদ্যার ভাষায় সকল প্রাণী মানুষ নয়। মানুষ হতে গেলে তাকে কিছু বৈশিষ্ট্যের অধিকারী হতে হয়। এক সময় শুনতাম হুজগে বাঙালি। এখন দেখি গুজবেও বাঙালি।

প্রশ্ন হতে পারে কেমন করে? দেখুন, বাংলাদেশে ৮ মার্চ ২০২০ প্রথম করোনা শনাক্ত হয়। প্রথম প্রথম কেউ বিষয়টি পাত্তাই দেয়নি। পরে চীনের উহান প্রদেশের নিত্যদিনের মৃত্যু সংবাদে টনক নড়েছে। গুজব ছড়ানো হলো আদা, লেবু, দারচিনি, তেজপাতা লবঙ্গ, গ্রীন টি এগুলো নিয়মিত খেলে করোনা ধারে কাছে ঘেঁষবে না।

শুরু হলো লংকাকান্ড। তখন হু অর্থাত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সারা বিশ্বকে সতর্ক করলো করোনা ভাইরাসজনিত রোগ। এর কোন প্রতিষেধক নেই। শুধু শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখেই একে প্রতিরোধ করা সম্ভব। কিছু খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তনের নির্দেশনাও ছিলো সেখানে।

আমরা ভুল করে শারীরিক দূরত্বকে সামাজিক দূরত্বে পরিণত করলাম। সাধ্যমত কেনাকাটা করতে গিয়ে কারও কারও লুঙ্গি খোলার অবস্থা। যারা প্যান্ট পরার সময় পাননি এই গুজবের চোটে। বাজারে কৃত্রিম সংকট শুরু হলো। বড় বড় মহাজন বিশেষ করে চাউলের সিন্ডিকেট রাতারাতি সব ধরনের চালের দাম বস্তাপ্রতি তিন থেকে চারশত টাকা বেশি করে নিলেন।

যাদের সামর্থ্য ছিলো, তারা ছয় মাসের বাজার একসাথে করে নিলেন। সমস্যা হলো নিম্নবিত্ত নিম্নমধ্যবিত্ত শ্রেণির। দুইশত টাকার আদা চারশত টাকা। এমন কোনও জিনিস নেই যার দাম বাড়েনি। এখন উল্টোচিত্র। বাজারে প্রায় সব নিত্যপণ্যের দাম স্বাভাবিক।

করোনা শুরুর প্রথমদিকে ঔষধের ফার্মেসিতে উপচে পড়া ভিড়। কারণ, সেখানে এন্টাসিড, সিভিট, এজিথ্রোমাইসিনের চাহিদা এতোই বেড়ে গেছে যে, সব মার্কেট আউট। হোমিওপ্যাথির দোকানেও একই দৃশ্য কারণ কী ? আর্সেনিকা এ্যালবাম নাকি করোনার মহৌষধ।

ভাই, হুজুগে বাঙালি হন আর গুজবে বাঙালি হন ক্ষতি নেই আমার। তবে করোনা ভাইরাস বাংলাদেশে এসে উল্টো বিপদে আছে। কোন পথ দিয়ে বাংলাদেশ থেকে বের হবে সেই চিন্তায় আছে। দয়া করে আপনারা ধৈর্যধারণ করুন করোনা চলে যাবে। তবে নিজের ডাক্তারি নিজে করবেন না। আর ফেসবুকের কল্যাণে যে সব এমনি বি এস ভাইরোলজি বিশেষজ্ঞ হয়েছেন তাদের পরামর্শ থেকে বিরত থাকবেন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আর বাংলাদেশ সরকারের করোনা ভাইরাস ব্রিফিং কাজে নিয়োজিত ডাক্তারের পরামর্শ মেনে চলুন। শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখুন। শরীরের হার্ড ইমিউনিটি বাড়ান। শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাই আমাদের রক্ষা করবে।