ঘুস দিয়ে সরকারী ঘর না পেয়ে নারীর আত্মহত্যা

19
নাজমা পাগলী- সংগৃহীত ছবি

দ্রোহ অনলাইন ডেস্ক

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ার পাগলী নাজমা সরকারি ঘর পাবার জন্য চেয়ারম্যানকে টাকা দিয়েছিল কিন্তু ৪ বছরেও ঘর মেলেনি। অবশেষে ঘর না পাবার রাগে-ক্ষোভে ওই নারী আত্মহত্যা করেছেন।

মঙ্গলবার বিকালে গুচ্ছগ্রামের রজবের স্ত্রী নাজমা বিষ পাণ করেন। পরে গুরুতর অসুস্থ্য অবস্থায় তাকে রাজধানীর মিটফোর্ড হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘ চার বছর আগে গজারিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবু তালেবের কাছে সরকারী পাকাঘর পবার জন্য প্রায় ৫০ হাজার টাকা দেন নাজমা পাগলী। কিন্তু চেয়ারম্যান তাকে আর ঘর দেয়নি। এ নিয়ে নাজমা একাধিকবার বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেন কিন্তু লাভ হয়নি। টাকা বা ঘর কোনাই না পেয়ে অবশেষে মহিলা নিজের বাড়িতে বিষ পান করেন।

গজারিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবু তালেব মোবাইল ফোনে জানান, তিনি ওই নারীর কাছ থেকে কোনো টাকা নেন নি। শুনেছেন মা-ছেলে ঝগড়া করে মহিলা আত্মহত্যা করেছে। তবে গত সোমবার নাজমা চেয়ারম্যানের কাছে গিয়েছিল। তার সাথে ঘরের বিষয়ে ঝগড়াও করে গেছে নাজমা।

উপজেলা পিআইও তাজুল ইসলাম জানান, নাজমা একাধিকবার এ বিষয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এসএম ইমাম রাজী টুলু ও আমার কাছে সরকারি বরাদ্দকৃত ঘর পাওয়ার জন্য আসেন।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এসএম ইমাম রাজী টুলু জানান, বিষয়টি খুবই মর্মান্তিক। এ বিষয়টি নিয়ে এই কর্মকর্তার কাছে একাধিকবার ওই নারী এসেছিল। কিন্তু তিনি কিছুই করতে পারিনি।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জিয়াউল হক চৌধুরী জানান, মহিলার বিষয়টি জেনেছি। বিষয়টি তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email